পরীক্ষা পদ্ধতি

১।    প্রতি মেয়াদে ১ম থেকে ৩য় শ্রেণি পর্যন্ত ৪টি করে ক্লাস টেস্ট নেয়া হয়। প্রতিটি ক্লাস টেস্টে ২৫ নম্বর থাকবে।
২।    শিশু থেকে ৫ম  শ্রেণির জন্য প্রতি মেয়াদান্তে মেয়াদি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। মেয়াদি পরীক্ষার ছাপানো প্রোগ্রাম প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীকে পরীক্ষার পূর্বে সরবরাহ করা হয়। প্রোগ্রামে কোন পরিবর্তন হলে নোটিশবোর্ড ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হয়।
৩।   ১ম থেকে ৫ম  শ্রেণিতে প্রত্যেক বিষয়ে (চারু ও কারুকলা,সঙ্গীত  ও শারীরিক শিক্ষা), ক্লাস টেস্ট এবং পরীক্ষা ২৫ নম্বরে হবে যা ফলাফল নির্ধারণের সাথে যোগ করা হবে।
৫।    তিনটি মেয়াদি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের গড় করে বার্ষিক পরীক্ষায় মেধা তালিকা তৈরি করা হয়।
৮।    চূড়ান্ত ফলাফল বা বাৎসরিক পরীক্ষায় প্রতি বিষয়ে কৃতকার্য না হলে পরবর্তী শ্রেণিতে প্রমোশন দেয়া হয়        না।
৯।    শ্রেণিভিত্তিক পাসের নম্বর হচ্ছে ১ম থেকে ৫ম শ্রেণি ৩৩% ।
১০।    কোন পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে না দিতে পারলে উপযুক্ত কারণ দেখিয়ে শ্রেণিশিক্ষকের মাধ্যমে প্রধান     শিক্ষক বরাবর আবেদন করতে হবে।
১১।    মেয়াদি পরীক্ষার খাতা বিদ্যালয় কর্তৃক সরবরাহ করা হয়।
১২।    ১ম ও ২য় মেয়াদি খাতা অভিভাবকদের পর্যবেক্ষণের জন্য পাঠান হয় ও দু’দিন পর ফেরত নেয়া হয়। ৩য় মেয়াদি পরীক্ষার খাতা নির্দিষ্ট তারিখে শ্রেণিকক্ষে দেখানো হয় এবং প্রতি মেয়াদান্তে রিপোর্ট কার্ড পাঠানো হয় এবং অভিভাবকের স্বাক্ষরের পর ফেরত নেয়া হয়।



নোটিশ বোর্ড

সকল নোটিশ





    google+     skype    rss